Category Archives: সংবাদ

প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় আভিসিনা ক্লিনিকে ভাংচুর, চিকিৎসকসহ গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিরাজগঞ্জ শহরের বেসরকারি আভিসিনা হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলায় এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় রোগীর বিক্ষুব্ধ স্বজনসহ এলাকাবাসী  শনিবার সকালে ওই হাসপাতাল ভাংচুর করে।

পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হাসপাতালের এনেসথেসিস্ট ও ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. আবু মোহাম্মদ শহিদুল্লাহসহ ৬ জনকে আটক করে। পরে ২ জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাকি ৪ জনকে মুচলেকায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

ঘটনার শিকার সোমা রানী সাহা (৩২) শহরের এসএস রোড সংলগ্ন কয়লা পট্টি মহল্লার ব্যবসায়ী চন্দন সাহার স্ত্রী।

রোগীর স্বজন ও এলাকাবাসী জানান, গর্ভবতী সোমা রানী সাহার প্রসব ব্যথা উঠলে চিকিৎসক শামীমা আজিজের পরামর্শে শুক্রবার রাতে শহরের আভিসিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গভীর রাতে রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক শামীমা আজিজ নির্ধারিত সময়ে আসেননি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে হাসপাতালের নার্স, সুইপার ও আয়ারা মিলে বাচ্চা প্রসব করায়। এসময় প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। এতে বাচ্চা সুস্থ থাকলেও তার মা ভোর ৫টার দিকে মারা যান।
এসময় মৃত সোমা রানীকে নিয়ে চিকিৎসার নাটক করা হলে তার স্বজনরা সবাইকে অবরুদ্ধ করে হাসপাতালে ভাংচুর চালায়। ডা. শামীমা ও ডা. মুরাদ পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়।
খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বাকীদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পরে ওই হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান ডা. শামীমা আজিজ তার বাসা থেকে আটক করা হয়।

নিহতের স্বামীর ভাই প্রদীপ কুমার বাদী হয়ে ডা. শামীমা আজিজ, নার্স তাজমিরা পরভীন এবং ওটি অ্যাসিস্ট্যান্ট কানিজ ফাতেমার নামে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ আটকদের মধ্য থেকে ডা. শামীমা আজিজ এবং ওটি আাসিট্যান্ট কানিজ ফাতেমাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠিয়ে দেয়।

এছাড়া ডেপুটি সিভিল সার্জন, ওয়ার্ড-বয় আকাশ, নার্স সুলতানা খাতুন ও তিন্নিকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে, ঘটনার পরপর ওই হাসপাতালের বাকি চিকিৎসক ও স্টাফরা গণধোলাইয়ের ভয়ে সটকে পড়েন। চিকিৎসক না থাকায় হাসপাতালে ভর্তিকৃত অন্যান্য রোগীরাও অন্যত্র চলে যান।

অপরদিকে, গাইনি চিকিৎসকসহ নার্সের জামিনের জন্য কোর্টে আবেদন করা হলেও বিকাল ৫টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেউই জামিন পাননি জানা গেছে।

তবে ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. শহিদুল্লাহ ও ডা. শামীমা আজিজ সাংবাদিকদের কাছে আকস্মিক জরায়ু ফেটে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে রোগী মারা গেলেও চিকিৎসকদের কোনও গাফলাতি ছিল না বলে দাবি করেছেন।

সদর থানার ওসি সৈয়দ সহিদ আলম বলেন, ‘চিকিৎসক ও নার্সদের গাফলাতিতে রোগী মৃত্যুর অভিযোগ ওঠায় পুলিশ ৬জনকে আটক করা হলেও পরে মামলার ভিত্তিতে ২জনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ না থাকায় মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও তিনি জানান।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. নিজাম উদ্দিন খান বলেন, গাফলাতির বিষয় প্রমাণিত হলে বা দায়িত্ব-কর্তব্যে অবহেলা করলে অবশ্যই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 
মঙ্গলবার, জুলাই ৩০, ২০১১

শাহজাদপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির দায়ে ১ জনের ৯ মাসের কারাদ-

 উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, শাহজাদপুর থেকে: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হাসিবুর রহমান স্বপনকে মুঠোফোনে হত্যার হুমকির দায়ে হাফেজ মোহাম্মদ-উল্লা বাবু (২৪) নামের ১ জনকে ৯ মাসের কারাদ- দেওয়া হয়েছে।
শুক্রবার(১৭জুন’২০১১) উপজেলার ভ্রাম্যমাণ আদালত এ দ- দেন। বাবু একই উপজেলার গাড়াদহ ইউনিয়নের তালগাছি গ্রামের মওলানা খোরশেদ আলমের পুত্র।

জানা যায়, সাবেক শিল্প উপমন্ত্রী, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যান হাসিবুর রহমান স্বপনকে মুঠোফোনে গত ১মাস ধরে নামে- বেনামে হত্যার হুমকি ও নানা কৌশলে বাবু টাকা দাবি করে আসছিল। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে থানার অফিসার ইনচাজ(ওসির্) মতিয়ার রহমান কৌশলে হুমকিদাতা বাবুর মুঠোফোনে যোগাযোগ করে বাবুকে উপহার দেওয়ার কথা বলে শুক্রবার উপজেলার রবীন্দ্র কাচারিবাড়িতে আসতে বলেন।

বাবু কাচারিবাড়ি এলে শাহজাদপুর থানার উপ পরিদর্শক রাকিব মুঠোফোনসহ হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে। এসময় বাবুর কাছ  থেকে বেশ কিছু নগ্নসিডি উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট, সহকারী কমিশনার (ভূমি)  সেলিম আহমদের আদালতে নেওয়া হলে আদালত সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে তাকে ৯ মাসের বিনাশ্রম কারাদ- দেন। পরে তাকে সিরাজগঞ্জ  জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

এ সময় ভূক্তভোগী হাসিবুর রহমান স্বপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রাসেল সাবরিন ও ওসি মতিয়ার রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত থাকলে তাদের গ্রেপ্তার করা হবে বলে ওসি মতিয়ার রহমান জানিয়েছেন।

‘ইউপি নির্বাচন’রায়গঞ্জে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী সমর্থিত ৪, বিএনপি সমর্থিত ৫

উপজেলা প্রতিনিধি, রায়গঞ্জ থেকে
সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলায় মঙ্গলবার(৩১ মে’ ২০১১) অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে ৯টি ইউনিয়নে বেসরকারীভাবে ৪ আওয়ামী লীগ সমর্থিত এবং ৫ বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী  চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সমর্থিত ব্রক্ষগাছা ইউপিতে নির্বাচিত হয়েছেন নাসির উদ্দিন নাজির (আনারস), পাঙ্গাসী ইউপিতে আব্দুস সালাম প্রামানিক (গরুর গাড়ি), ধানগড়া ইউপিতে ফিরোজ উদ্দিন খান (গরুর গাড়ি) ও সোনাখাড়া ইউপিতে আমজাদ হোসেন ছানা (কাপ-পিরিচ)।
এছাড়া, বিএনপি সমর্থিত নলকা ইউপিতে আবু বকর সিদ্দিক (আনারস), ধামাই নগর ইউপিতে রেজাউল করিম রেজা (দেওয়াল ঘড়ি), চান্দাইকোনা ইউপিতে স্বপন কুমার দাস (দেওয়াল ঘড়ি), ঘুরকা ইউপিতে হারুনুর রশীদ শাহীন (উড়োজাহাজ) ও ধুবিল ইউপিতে নাজমুল ইসলাম তালুকদার শাহাজাদা (উড়োজাহাজ) প্রাথমিকভাবে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

রায়গঞ্জের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র সুষ্ঠভাবে ভোটগ্রহন সম্পন্ন হলেও সন্ধায় ও রাতে কয়েকটি স্থানে বিক্ষিপ্ত ঘটনা ঘটে। তবে স্থানীয় প্রশাসন এবং র‌্যাব ও পুলিশ বাহিনী তাৎক্ষণিক তা মোকাবেলা করে বলে তাদের দাবি। 

সিরাজগঞ্জ বার্তা/এমকে/৩১ মে, ২০১১

‘শাহজাদপুরে কৃষক হত্যা মামলায় পিতা ও দুই পুত্রের যাবজ্জীবন

উপজেলা প্রতিনিধি, শাহজাদপুর:
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের ছোট-টেপরী গ্রামের কৃষক মোজাম্মেল হত্যা মামলার রায়ে পিতা ও দুই পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ

দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি সাজাপ্রাপ্তদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকার জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ৬ মাসের

সশ্রম কারাদন্ডও  দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার(১২এপ্রিল’২০১১) দুপুরে সিরাজগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আব্দুস সালেক এ রায় দেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলো- একই গ্রামের হাবিবুর রহমান হবি (৭০) ও তার দুই পুত্র বিপুল (৩৫) এবং আলীম (৩২)। অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার অপর আসামি আমিরুল, ঈছা, আলম (১), আলম (২), রশীদ, খলিল ও আমানতসহ ৭জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।
মামলার বিবরণী থেকে থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালের পহেলা এপ্রিল সন্ধায় বিবাদমান জমির ধান কাটাকে কেন্দ্র করে দ-প্রাপ্ত আসামিরা মোজাম্মেলকে নিজ গৃহে পিটিয়ে হত্যা করে।
এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী হাসিনা খাতুন বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় ঘটনার পর দিন হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলায় আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আব্দুর রাজ্জাক আতা ও সরকার পক্ষে আব্দুর রহমান রানা।

সিরাজগঞ্জ বার্তা/এএ্ইচএস/১২ এপ্রিল, ২০১১

কাজী হাবিবুর রহমানের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

 উপজেলা প্রতিনিধি, রায়গঞ্জ:

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার ব্রক্ষগাছা ইউনিয়নের সাবেক ম্যারেজ রেজিস্ট্রার,  বিশিষ্ট সমাজসেবক কাজী হাবিবুর রহমানের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী গত ৮ মে’২০১১ রোববার পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গত শুক্রবার (৬ মে) উপজেলার রামেশ্বরগাতী গ্রামের বাড়িতে তার রুহের মগফেরাত কামনায় মিলাদ মাহফিল, কবর জিয়ারতের আয়োজন করা হয়। এতে আলেম সমাজ, আত্বীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও শুভাণুধ্যায়ীরা অংশ নেন।
উল্লেখ্য, তিনি বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর.কমের নিউজরুম এডিটর নূরনবী সিদ্দিক সুইন এর পিতা ও পরিকল্পণা মন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) একে খোন্দকারের এপিএস আজাদুল ইসলাম আজাদের ভগ্নিপতি।
কর্মজীবনে সফল এ সমাজসেবী ২০০৩ সালের ৮ই ঢাকার জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৭ বছর।

সিরাজগঞ্জ বার্তা/টিএসএন/ মে ০৮’ ২০১১ইং

সিরাজগঞ্জে ডাক্তারকে জবাই, জড়িতদের শাস্তির দাবিতে চিকিৎসকদের আল্টিমেটাম

সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ডা. আবদুল বাকী মির্জাকে (৪০) গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের কাছে সরকারি ডরমেটরি বিল্ডিংয়ের ২য় তলায় তার ব্যবহার করা ৮নং রুমে গলা কেটে হত্যা করা হয়। শনিবার(এপ্রিল ১৬, ২০১১) দুপুর ৩টার দিকে পুলিশ এ ডাক্তারের লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

২০০৭ সালে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে যোগ দেন। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার রূপপুর গ্রামে। তার স্ত্রী ঢাকার মহাখালীতে অবস্থিত মেট্রোপলিটন ক্লিনিকের গাইনি বিভাগে কর্মরত। তার একটি মেয়ে রয়েছে। স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন তিনি ।

পুলিশ সূত্র জানায়, গতকাল দুপুর ২টার দিকে উল্লাপাড়া হামিদা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও ডাক্তারের দূরসম্পর্কীয় ছোট বোন এশা ডরমটেরিতে এসে ডা. আবদুল বাকী মির্জাকে মোবাইল ফোনে না পেয়ে ডরমিটরিতে আসে।   এ সময় কক্ষটি বাইরে থেকে আটকানো অবস্থায় ছিল। পরে পার্শ্ববর্তী কক্ষে বসবাসরত সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ে কর্মরত রিডার সোহরাব ও ওই ছাত্রী দরজা খোলার পর দেখতে পান মেঝেতে ডাক্তারের রক্তাক্ত লাশ পড়ে আছে।

সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার মোশারফ হোসেন জানান, এখন পর্যন্ত হত্যাকা-ের কোনো কারণ জানা যায়নি। তবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খুঁজতে আসা তার বোন এশা ও ডরমেটরিতে কর্মরত দুই কাজের বুয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
 হত্যাকা-ে ব্যবহৃত দাসহ কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক আমিনুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোশারফ হোসেন, ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আবদুর রাজ্জাক, র‌্যাব-১২ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার এএসপি শহিদ উল্লাহ্ ও বিএমএর সভাপতি ডা. জহুহুল হক রাজা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আবদুর রাজ্জাক জানান, ডা. আবদুল বাকী মির্জা শুক্রবার ১২টা পর্যন্ত হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করেছেন। তারপর থেকে তার সঙ্গে হাসপাতালের কারও কোনো যোগাযোগ হয়নি।

এদিকে ডা. বাকী মির্জার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে স্থানীয় প্রশাসনকে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের(বিএমএ) সিরাজগঞ্জ জেলা শাখা।
 
সংগঠনের জেলা সভাপতি ডা. জহুরুল হক রাজার নেতৃত্বে কয়েকশ‘ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী রোববার দুপুর ১২টার দিকে  জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে স্মারকলিপির মাধ্যমে এই আলটিমেটাম দেন।

ডা. রাজা জানান, আলটিমেটাম অনুযায়ী প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে তারা জেলায় সব সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে কর্মবিরতি পালন করবেন।

আগামী বছরই যমুনায় ক্যাপিটাল ড্রেজিং : সিরাজগঞ্জে পানিসম্পদ মন্ত্রী

 আগামী বছরই যমুনা নদীতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন। রোববার(এপ্রিল ১৭, ২০১১) দুপুরে সিরাজগঞ্জ হার্ড পয়েন্টের সংস্কার ও মেরামত কাজের পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, ‘বিগত জোট সরকারের সময় হার্ড পয়েন্টসহ বাঁধ সংস্কার ও মেরামত না করায় বিভিন্ন স্থানে ভাঙন দেখা দেয়। বর্তমান সরকার নদীশাসন করে ভাঙন রক্ষায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। আগামী বছরই যমুনা নদীতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হবে। এর ফলে একদিকে যেমন নাব্যতা ফিরে আসবে, অন্যদিকে ভাঙনও অনেকাংশে রোধ করা সম্ভব হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ দেশে মেয়াদোর্ত্তীর্ণ ড্রেজার দিয়ে খনন কাজ চলছে। এর ফলে যথাসময়ে খনন কাজ শেষ হচ্ছে না। এজন্য আগামী দেড় বছরের মধ্যে নেদারল্যান্ডস থেকে ১৫টি অত্যাধুনিক ড্রেজার মেশিন আনা হচ্ছে।’ এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- পাউবোর রাজশাহী জোনের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আফজাল হোসেন, পাউবোর বগুড়ার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সর্দার সিরাজুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মোঃ আমিনুল ইসলাম, পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী সুজয় চাকমা, বিশেষায়িত শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল মালেক, পুলিশ সুপার মোঃ মোশারফ হোসেন প্রমুখ।

১৩বছর পর সিরাজগঞ্জে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, উন্নয়নের নানা ঘোষণা

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা প্রায় ১৩বছর পর সিরাজগঞ্জ সফরে এসে জেলার উন্নয়নে নানা ঘোষণা দিয়েছেন। জেলাবাসী প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে উন্নয়নের এসব ঘোষণা পেয়ে দারুণ খুশী।

৯ এপ্রিল শনিবার দুপুরে ১দিনের সরকারি সফরে হেলিকপ্টারযোগে সিরাজগঞ্জে আসেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বন্ধ থাকা সিরাজগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী কওমী জুট মিলের, জেলার সয়দাবাদে ১৫০ মেঃ ওয়াট পিকিং পাওয়ার প্লান্ট নির্মাণ প্রকল্পের কাজ ও সয়দাবাদ-এনায়েতপুর সড়ক সম্প্রসারণ কাজের ্আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। এছাড়া তিনি এবং বিকেলে সিরাজগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল সমাবেশে ভাষণ দেন। প্রতিটি কর্মসূচিতেই তিনি সিরাজগঞ্জের উন্নয়ন নিয়ে কথা বলেন।

জেলাবাসীর দাবি-দাওয়ার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জেলার কাজিপুর থেকে শহর পর্যন্ত ও বগুড়ার সারিয়াকান্দি থেকে কাজিপুর পর্যন্ত যমুনার ভাঙ্গনরোধে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে। বগুড়া থেকে সিরাজগঞ্জ হয়ে ঢাকা পর্যন্ত ট্রেন চলাচলের ব্যবস্থা করা হবে। পাশাপাশি সিরাজগঞ্জ থেকে উঠে যাওয়া আন্ত:নগর ট্রেনগুলো সিরাজগঞ্জ থেকে পুনরায় চালু করা হবে। একইভাবে মিল্কভিটা প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রমের সম্প্রসারণ করা হবে। তিনি আরও বলেন, জেলার দরিদ্র ছেলেমেয়েদের জন্য ফুড ফর এডুকেশন চালু করা হবে। যুবকদের জন্য মেরিন টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, কারিগরি শিক্ষা ইনস্টিটিউট গড়ে তোলা হবে। শিল্পপাক স্থাপনের প্রক্রিয়া এরইমধ্যে শুরু করা হয়েছে এবং এই সরকারের আমলেই এটা শেষ করা হবে। এসময় আদালত ভবন তৈরি করার ঘোষণাও দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ পরিণত হয় এক জনসমুদ্রে। উন্নয়নের নানা ঘোষণসহ প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক বিষয় নিয়েও কথা বলেন। সমাবেশে তিনি বলেন, নৌকা মার্কায় ভোট দিলে জনগণ কিছু পায়, বিএনপি ক্ষমতায় আসলেই লুটপাট শুরু হয়। দূর্নীতি ও সন্ত্রাস করতে না পারায় খালেদা জিয়ার মাথা খারাপ হয়ে গেছে। ক্ষমতায় থাকাকালে দলটি দূর্নীতি, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস কায়েম করে কালো টাকা সাদা করে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। এখন সে সুযোগও নেই, ক্ষমতাও নেই। তাই তিনি আবোল-তাবোল বকছেন।

তিনি বিরোধী দলীয় নেতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তার স্বামীর রেখে যাওয়া ভাঙ্গা স্যুটকেস ও ছেড়া গেঞ্জি কি করে বিলাসবহুল অট্টালিকায় পরিনত হলো? বিরোধী দল কথায় কথায় সংবিধান লংঘনের কথা বলেন, অথচ তার স্বামী অবৈধভাবে সামরিক শাসন জারি করে রাতের অন্ধকারে যখন ক্ষমতায় এসেছিলেন। এমনকি ক্ষমতায় থেকেই রাজনৈতিক দল গঠন করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে তার সরকারের নেওয়া নানা উন্নয়ন কর্মকা- তুলে ধরেন। পাশাপাশি কৃষকদের জন্য নানা প্রদক্ষেপ, জনগণের দোরগড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছাতে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন, শিক্ষাক্ষেত্রে নানা অগ্রগতি কথাও বলেন তিনি।

নারী নীতি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া নিজে নারী হয়ে নারী-নীতির বিরোধীতা করছেন। আওয়ামী লীগ কখনও কুরআন-সুন্নাহার বিরোধিতা করে না। নারী উন্নয়ন নীতিমালা নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় করা হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ওই সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর সংস্থাপন বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ.টি.ইমাম, মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, সাবেক সরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ মোঃ আবুল হোসেন, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, প্রধানমন্ত্রীর ব্যাক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কে.এম. হোসেন আলী হাসান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়্যারম্যান আবু মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, সোনালী ব্যাংকের পরিচালক জান্নাত আরা তালুকদার হেনরী প্রমূখ ।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমে সয়দাবাদ থেকে সিরাজগঞ্জ শহর পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া নানা রং-বেরং’র ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সাজানো হয় পুরো শহরকে। রাস্তার দু’পাশে দাড়িয়ে থাকা জেলার বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী, নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনগণ ফুল দিয়ে বরণ করে নেন প্রধানমন্ত্রীকে।

@এএল/টিএস/এপ্রিল ০৯, ২০১১

এইচএসসি পরীক্ষা: তাপসী রাবেয়া মহিলা কলেজের কেউই অংশ নেয়নি

 সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার সাতবাড়িয়া তাপসী রাবেয়া মহিলা কলেজের কোনো পরীক্ষার্থীই এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়নি। এ বছরই প্রথমবারের মতো এই কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিল ১২ জন। মঙ্গলবার(৫এপ্রিল) থেকে শুরু হওয়া ২০১১ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের একাডেমিক স্বীকৃতি প্রাপ্ত এই কলেজের পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্র ছিল পাশ্ববর্তী উল¬াপাড়া বিজ্ঞান কলেজে। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় কলেজের মেয়েরা এবছর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেনি বলে জানিয়েছেন ওই কলেজের অধ্যক্ষ রবিউল করিম। অধ্যক্ষ রবিউল করিম মুঠোফোনে বলেন, তার কলেজের ছাত্রীরা প্রত্যন্ত গ্রামের বাসিন্দা। উল্লাপাড়া বিজ্ঞান কলেজ কেন্দ্র আমাদের মেয়েদের বাড়ি থেকে প্রায় ১৫/২০ কিলোমিটার দুরে। যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভাল না। তাই এ বছর কেউ পরীক্ষা দিবেনা। আগামী বছরে তার কলেজের কেন্দ্র কাছের শাহজাদপুর সরকারি কলেজে কেন্দ্রে নেওয়ার জন্য কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের আবেদন করেছেন বলে তিনি জানান। তবে এ বিষয়ে কোনো পরীক্ষার্থীনীর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে উল¬াপাড়া বিজ্ঞান কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব আশরাফুল ইসলাম জানান, তার কেন্দ্রে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় ৬টি কলেজের মোট ৫৬২ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এর মধ্যে ৫টি কলেজের মোট ৫৫০ জন পরীক্ষার্থী প্রথম দিন পরীক্ষায় অংশ নেয়। তাপসী রাবেয়া মহিলা কলেজের ১২ জন ছাত্রীর প্রবেশ পত্র নিয়ে গেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কেউই পরীক্ষা দিতে আসেনি।

@এএইচএস/আরকে/এপ্রিল ৬, ২০১১

সিরাজগঞ্জে ইভটিজারসহ ৩ জনের জরিমানা, কারাদন্ড

 

সিরাজগঞ্জঃ সিরাজগঞ্জ সরকারি রাশিদুজ্জোহা মহিলা কলেজের গেটের সামনে একটি মেয়েকে যৌন হয়রানির অভিযোগে এক ইভটিজারকে ২০হাজার টাকা জরিমানাসহ অন্য দু’টি ঘটনায় আরও ২জনকে জেল ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় সদর ইভটিজার উপজেলার আড়িয়া মোহন গ্রামের সুমন আহম্মেদকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে তাৎক্ষণিক তা আদায় করা হয়। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেওয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ এনামুল আহসানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে একই দিন সকালে কড্ডার মোড় এলাকায় একটি বাসে তল্লাশি করে যাত্রী গাজীপুর উপজেলার কালিয়াকৈর গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী আব্দুল মজিদের কাছ থেকে ৭ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তাকে দুই বছর বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়। অন্যদিকে, সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের ব্রেঞ্চ চুরি করার সময় হাতে নাতে আটক শহরের বাগান বাড়ি এলাকার মাদক সেবী সালেহীন মাহমুদুদুল অনুকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়েছে। দুজনকেই জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।